সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নাসরিনের আঙিনায় ঠাঁই সাবিনাদের

আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৮ এএম

প্রতিবারই তারা নারী লিগে অংশ নেয়। মাঝারিমানের দল গড়ে তাদের লক্ষ্যই থাকে মাঝামাঝি অবস্থানে থেকে লিগ শেষ করা। তৃণমূলের সংগঠক নাসরিন আক্তার বেবী নিজ নামে বহু বছর ধরে চালিয়ে আসছেন নাসরিন স্পোর্টিং ক্লাব। সাবেক এই ফুটবল রেফারি আসছে নারী ফুটবল লিগ উপলক্ষে দলবদলের শেষ দিনে দিলেন চমক। সর্বশেষ সিনিয়র জাতীয় দলের ১৫ ফুটবলারকে দলে নিয়ে তিনি গড়েছেন সেরা দল। জাতীয় দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুনসহ ১৫ জনই গত তিন মৌসুম খেলেছেন শিরোপাজয়ী বসুন্ধরা কিংসের হয়ে।

বসুন্ধরা কিংস সরে দাঁড়ানোয় দল পাওয়া নিয়ে ভীষণ ভাবনায় পড়ে গিয়েছিলেন জাতীয় দলের ফুটবলাররা। তবে শেষ পর্যন্ত নাসরিন এগিয়ে আসায় কিছুটা নিশ্চিন্ত তারা বলেছেন, পেশাদারিত্বের খাতিরে ও ভালোবাসার টানে লিগে খেলবেন। রবিবার জাতীয় দলের অধিনায়ক সাবিনা বলেন, ‘নাসরিনের হয়ে আমরা শিরোপার লক্ষ্যেই খেলতে নামব। এখানে আমরা প্রায় ১৫ জন জাতীয় দলের ফুটবলার আছি। আর্থিক দিক যদি বলেন, আমরা কেউ হতাশ নই। আশা করছি ক্লাব আমাদের সম্মানের দিকটা দেখবে। আমাদের সবাইকে হয়তো এই দলে দেখে অবাক হচ্ছেন। অনেক প্রশ্ন হয়তো ঘুরপাক খাচ্ছে। আমরা কিন্তু দিন শেষে ফুটবলার। ভালোবেসে এবং পেশাদারিত্বের তাগিদে আমরা খেলছি।’

নারী ফুটবল লিগে দেশের স্বীকৃত ক্লাবগুলোর অনাগ্রহ দেখে হতাশ সাবিনা। বাফুফের একাধিকবার চেষ্টা করেও আবাহনী, মোহামেডান, শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব, শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের মতো বড় বাজেটের দলগুলোকে নারী ফুটবলমুখী করতে পারেনি। ফলে আর্থিক দিক থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হতে হচ্ছে ফুটবলারদের। সাবিনারা বেশি হতাশ হয়েছেন সাফ জয়ের পরও প্রতিষ্ঠিত ক্লাবগুলোর আগ্রহ তৈরি হতে না দেখে, ‘দেখেন, একেকটা ক্লাব পুরুষ ফুটবলের দল গড়তে কোটি কোটি টাকা খরচ করে। অথচ একজন পুরুষ ফুটবলারের চুক্তির টাকায় একটা নারী ফুটবল দল হয়ে যায়। ক্লাবগুলো আন্তরিক না হলে লিগ এভাবেই হবে।’

জাতীয় দলের ১৫ ফুটবলার ও আগের লিগে খেলা দল থেকে ১০ জন এই ২৫ জন নিয়ে গড়া হয়েছে নাসরিন স্পোর্টিং ক্লাব। সাবিনা ছাড়াও বাকিরা হলেন সানজিদা আক্তার, মারিয়া মান্ডা, শামসুন্নাহার জুনিয়র, শামসুন্নাহার সিনিয়র, ঋতুপর্ণা চাকমা, মনিকা চাকমা, মাসুরা পারভীন, শিউলি আজীম, মারজিয়া আক্তার, আনাই মগিনি, মাতসুসিমা সুমাইয়া, কৃষ্ণা রানী সরকার, নিলুফার ইয়াসমিন নিলা ও রূপনা চাকমা।

শেষবার লিগ হয়েছিল ১২ দল নিয়ে। এবার সেটা কমে প্রথমে ছিল ৮টি। শেষ দিনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী দলবদলে অংশ নেওয়ায় ৯ দল নিয়ে হবে লিগ। গতবার খেলা কিংস ছাড়াও বরিশাল ফুটবল একাডেমি, কুমিল্লা ইউনাইটেড ও এফসি ব্রাহ্মণবাড়িয়া খেলছে না এবার। এবারের লিগে নাসরিন ও সেনাবাহিনী ছাড়াও খেলছে গতবারের রানার্সআপ আতাউর রহমান ভূঁইয়া কলেজ স্পোর্টিং ক্লাব, উত্তরা ফুটবল ক্লাব, সিরাজ স্মৃতি সংসদ, সদস্য পুষ্করিনী যুব স্পোটিং ক্লাব, জামালপুর কাচারিপাড়া একাদশ, ঢাকা রেঞ্জার্স ফুটবল ক্লাব ও ফরাশগঞ্জ স্পোর্টিং ক্লাব।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত