মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

থানায় হামলা চালিয়ে আসামি ছিনতাইয়ের চেষ্টা, আহত ৩০

আপডেট : ১০ জুন ২০২৪, ০২:২৪ এএম

ঝিনাইদহ শৈলকুপা থানায় হামলা করে গ্রেপ্তারকৃত এজাহারভুক্ত আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। এ সময় থানা ঘেরাও করে হামলা-ভাঙচুর চালিয়েছে তারা। এ ঘটনায় ৫ জন পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বেশ কিছু ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এতে হামলাকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

গতকাল রবিবার দুপুরে শৈলকুপা থানায় এ ঘটনাটি ঘটে। আহত ৫ পুলিশ সদস্যকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত অন্যরা বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

স্থানীয়রা জানায়, গ্রেপ্তারকৃত মুস্তাক শিকদার মারামারি মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। তিনি স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী বলে জানা গেছে। মুস্তাক শিকদারকে পুলিশ গতকাল দুপুরে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিকেলে ধলহারা গ্রাম এবং আশপাশের প্রায় শত শত লোক ঢাল ভেলা লাঠিসোঁটা রামদা নিয়ে থানায় হামলা চালিয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। শুরু হয় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া। হামলাকারীরা আরও বেপরোয়া হয়ে ওঠে। এতে পুরো থানা এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ২০ থেকে ২৫ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়ে হামলাকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ ঘটনায় ৫ পুলিশসহ অন্তত ৩০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে ৩ জনকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক তাদের ঢাকা মেডিকেলে রেফার করেন। আহত অন্যরা বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে।

আহত ৩ পুলিশ সদস্য হলেন আব্দুল সালাম, মো. ইকবাল হোসাইন ও তরিকুল মিনা। আহত সবাই ঝিনাইদহ পুলিশ লাইনসের পুলিশ সদস্য।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম চৌধুরী হামলার বিষয় নিশ্চিত করে জানান, হামলায় আমার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে দুজনকে।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার আজিম উল আহসান জানান, মুস্তাক নামে গ্রেপ্তারকৃত একজন এজাহারনামীয় আসামিকে শৈলকুপা থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে। বিকেলের দিকে থানা ঘেরাও করে তাকে ছিনতাই করার চেষ্টা চালানো হয়। সে সময় হামলাকারীরা থানার ভেতরে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। তাদের থামাতে গেলে তারা ঢাল ভেলা রামদা সড়কি নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ সময় আমাদের অন্তত ১০ পুলিশ গুরুতর আহত হয়। আহতদের ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি অভিযান চলছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত