সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

যৌতুকের জন্য হত্যার অভিযোগ

বিয়ের ৪ মাস পর লাশ হয়ে ফিরল সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী

আপডেট : ১৬ জুন ২০২৪, ০১:২৮ এএম

কুষ্টিয়ার মিরপুরে মিম (১৬) নামে এক বালিকা বধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের রামনগর গ্রাম থেকে মিমের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত মিম রামনগর গ্রামের সুজনের স্ত্রী ও একই উপজেলার সদরপুর ইউনিয়নের শ্রীরামপুর গ্রামের শাজাহান আলীর মেয়ে।

শ্রীরামপুর মোজাদ্দেদিয়া দাখিল মাদ্রাসায় ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী থাকা অবস্থায় গত ফেব্রুয়ারিতে মিমকে পরিবার বিয়ে দেয় বলে নিশ্চিত করেন মাদ্রাসা সুপার আজিজুল ইসলাম।

নিহতের পিতা শাজাহান আলীর অভিযোগ, ‘বিয়ের সময় ছেলেপক্ষের দাবি মতে, নগদ দেড় লাখ টাকা, ফ্রিজ ও গহনাসহ সংসারের জিনিসপত্র দেওয়ার কথা ছিল। আমি বলেছিলাম সব একসঙ্গে দিতে পারব না, আস্তে আস্তে পরিশোধ করব। কিন্তু ওদের আর তর সইল না, ১৫ দিন আগে টাকার জন্য মিমকে মারধর করে তাড়িয়ে দেয় স্বামী সুজন ও শ্বশুর মোস্তফা। ৮ দিন আগে তারা এসে আবার মিমকে নিয়ে যায়। গত শুক্রবার রাতভর নির্যাতনের ফলে মিমের মৃত্যু হয়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে মিমের গলায় রশি পেঁচিয়ে মৃতদেহ ঝুলিয়ে রাখে। মিমের মুখে, কপালে, ঘাড়ের পেছনে এবং দেহের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন আছে। অথচ শ্বশুরবাড়ির লোকদের কথামতো পুলিশও বলছে আত্মহত্যা।’

নিহতের স্বামী সুজন আলী ও শ^শুর মোস্তফার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া যায়নি।

মিরপুর থানার ওসি মোস্তফা হাবিবুল্লাহ বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর কারণ যদি হত্যাকা- হয় তাহলে সে অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত