সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মানুস দ্বীপে বন্দি ইরানি শরণার্থী

জেলে লেখা আত্মজীবনী পেল সাহিত্য পুরস্কার

আপডেট : ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:২৬ পিএম

পাপুয়া নিউগিনির মানুস দ্বীপের কারাগারে বসে লেখা বইয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার শীর্ষ সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন বেহরুজ বুচানি নামের এক শরণার্থী। গত বৃহস্পতিবার রাতে তার লেখা প্রথম ‘নো ফ্রেন্ডস বাট দ্য মাউন্টেইনস’ বই ভিক্টোরিয়ান প্রিমিয়ার্স সাহিত্য পুরস্কারে ২৫ হাজার এবং ভিক্টোরিয়ান পুরস্কারে এক লাখ ডলার জিতে নেয়।

গত ছয় বছর ধরে ইরানের শরণার্থী বুচানি পাপুয়া নিউগিনিতে অস্ট্রেলিয়ার কারাগারে বন্দি হয়ে আছেন। এই কারাগারে বসেই তিনি মোবাইলের মাধ্যমে বইটি লিখেছেন। তার আত্মজীবনীমূলত এই বইয়ে জায়গা পেয়েছে নিজের জীবনের চরম দুঃখ ও দুর্দশার কথা। দ্য গার্ডিয়ান জানায়, নৌকায় করে সমুদ্রপথে অস্ট্রেলিয়া প্রবেশের চেষ্টা করা বুচানি ধরা পড়ার পর থেকে মানুস দ্বীপে শরণার্থী ক্যাম্পে আছেন। ওই ক্যাম্পে এক হাজারের বেশি শরণার্থী বসবাস করে। পুরস্কার জয়ের খবরের পর এক খুদেবার্তায় বুচানি বলেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত আমার চারপাশের নির্দোষ মানুষদের ভোগান্তি শেষ না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত আমি এ অর্জন উদযাপন করতে চাই না। এটা অস্ট্রেলিয়ার সরকারের জন্য দারুণ লজ্জার। তাদের নীতির কারণেই আজ আমার এ দুর্দশা।’

অস্ট্রেলিয়ার অভিবাসন নীতি অত্যন্ত কঠোর। দেশটির সরকার শরণার্থীদের মূল ভূখণ্ডে প্রবেশ করতে না দিয়ে পাপুয়া নিউগিনির তিনটি এবং দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরের দ্বীপ নাউরুর কারাগারে রাখে। অভিবাসনের আবেদন এবং সেগুলো যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়ার মধ্যে কারাগারগুলোতে বছরের পর বছর শরণার্থীদের এক রকম বন্দি জীবন কাটাতে হয়। কঠোর অভিবাসন নীতির কড়া সমালোচক বুচানি মোবাইলে ফার্সি ভাষায় বইয়ের এক একটি অধ্যায় লিখে তা ‘হোয়াটসঅ্যাপে’র মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ায় একজন অনুবাদকের কাছে পাঠাতেন। ওই অনুবাদক তার হয়ে লেখাটি প্রকাশ করেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত