বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতি

৭০ ভাগ কাজ সম্পন্ন নিরাপত্তায় থাকবে ১০ হাজার র‌্যাব-পুলিশ

আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:০৭ এএম

আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে শুরু হতে যাওয়া বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতিকাজ ৭০ ভাগ শেষ হয়েছে। বাদবাকি কাজ আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে শেষ হবে। এবার পুরো ইজতেমা ময়দানের নিরাপত্তায় পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ও ফায়ার সার্ভিসের ১০ হাজার সদস্য মোতায়েন থাকবে। গতকাল সোমবার বিকেলে ইজতেমা ময়দান পরিদর্শন শেষে গাজীপুরের জেলা প্রশাসক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর এসব তথ্য জানান।হুমায়ূন কবীর বলেন, ‘এবারের ইজতেমা এক পর্বে হওয়ার কারণে ৬৪ জেলার মুসল্লিরা একসঙ্গে ইজতেমায় যোগ দেবেন, তাই মুসল্লিদের চাপ থাকবে প্রচুর। মুসল্লিদের নিরাপত্তা, চলাচল এবং অজু-গোসলসহ প্রয়োজনীয় সব কাজের জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’তিনি জানান, মুসল্লিদের যাতায়াতের জন্য ১২৩টি বিশেষ ট্রেন, ৪০০টি বিআরটিসি বাস এবং পর্যাপ্ত লঞ্চের

ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া পুরো ইজতেমা ময়দানের নিরাপত্তায় ৯ হাজার পুলিশ সদস্য, ২০০-এর বেশি র‌্যাব ও ৩০০-এর বেশি আনসার সদস্যসহ ফায়ার সার্ভিসের তিন শতাধিক কর্মী মোতায়েন থাকবেন। এর বাইরে প্রস্তুত থাকবেন বিজিবি সদস্যরা।

জেলা প্রশাসক আরও জানান, ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের চলাচলের জন্য ১৭টি প্রবেশ পথে আর্চওয়ে বসানো হবে, থাকবে ১৫টি ওয়াচ টাওয়ার। এছাড়া আকাশে কয়েকটি হেলিকপ্টারও টহল দেবে। নিরাপত্তা, বিশুদ্ধ খাবার ও আনুষঙ্গিক বিষয়গুলো সমাধানের জন্য একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে প্রতিদিন ৩০টি করে ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করবে। মুসল্লিদের জন্য থাকবে পর্যাপ্ত ওষুধ ও চিকিৎসক।ইজতেমা মাঠের রাস্তাঘাট উন্নয়নসহ সব ধরনের অবকাঠামো তৈরির কাজ আজকের মধ্যে শেষ হবে বলেও জানান হুমায়ূন কবীর।ইজতেমা ময়দানের জিম্মাদার ফকির আতাউর রহমান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘ইজতেমার প্রস্তুতি দ্রুত এগিয়ে চলছে। প্রতি বছরের মতো এবারও আসা মুসল্লিরা জেলাওয়ারি খিত্তায় অবস্থান করবেন।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত