সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান আজ

টেকসই নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় ডিএমপি

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০২:২০ এএম

রাজধানীতে খুন, ডাকাতি ও চুরির মতো অপরাধগুলো অনেকটাই কমে এসেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কর্মকর্তারা। তারা বলছেন, আগামী দিনগুলোতে আরও ভালো সেবা দিতে ডিএমপির সদস্যরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। নাগরিকদের নিয়েই টেকসই নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। আজ বুধবার ডিএমপির ৪৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান সামনের রেখে তারা এসব কথা জানান।

বিগত বছর গায়েবি মামলা, নাশকতার মামলা বৃদ্ধিসহ নানা কারণে সমালোচিত ছিল ডিএমপি। তবে পুলিশের সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এসব সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি মিথ্যা মামলায় যাতে কোনো নিরীহ নাগরিক হয়রানির শিকার না হয়, সে বিষয়ে কঠোর নজরদারি করা হচ্ছে।

১৯৭৬ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ১২টি থানা নিয়ে ডিএমপির যাত্রা শুরু হয়। এবার পুলিশ সপ্তাহের কারণে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান পিছিয়ে আজ বুধবার নির্ধারণ করা হয়। দিনের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে র‌্যালি ও নাগরিক সংবর্ধনা। এ ছাড়া বিভিন্ন থানা ও ইউনিটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলাদা কর্মসূচি পালিত হবে।

ডিএমপির জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা জানান, ১২ থানা নিয়ে যাত্রা শুরু হলেও ডিএমপিতে এখন থানা হয়েছে ৫০টি। বসুন্ধরা, রায়েরবাগ ও দক্ষিণগাঁও নামে আরও তিনটি থানা গঠন প্রক্রিয়াধীন। ৩০ হাজার ৫৪৫ সদস্যের বাহিনী এখন ডিএমপিতে। ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ইউনিট, সাইবার ক্রাইম ইউনিট, আটটি ক্রাইম ডিভিশন, ডিটেক্টিভ ব্রাঞ্চ, সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিভিশন, ট্রাফিক ডিভিশন, ডিপ্লোম্যাটিক ডিভিশন, ইন্টেলিজেন্স অ্যানলাইসিস ডিভিশন, প্ল্যানিং অ্যান্ড রিসার্চ ডিভিশন, প্রসিকিউশন ডিভিশন, প্রটেকশন ডিভিশন, উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের মাধ্যমে কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এই শাখাগুলোর মাধ্যমে ডিএমপি নগরবাসীকে টেকসই নিরাপত্তা দিয়ে যাচ্ছে। 

ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘আমরা নগরবাসীকে নিয়ে একটি টেকসই নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাই। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি নগরবাসীকে উন্নত সেবা দিতে ডিএমপি বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত