শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

লালমনিরহাটে উত্তাপ ছড়াচ্ছেন ‘বিদ্রোহী’রা

আপডেট : ০৪ মার্চ ২০১৯, ১২:৫০ এএম

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লালমনিরহাটের ৫টি উপজেলায় নির্বাচনী মাঠে উত্তাপ ছড়াচ্ছেন ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীরা। নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করায় জেলায় কালীগঞ্জ উপজেলা ছাড়া অন্য চার উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর প্রতিদ্বন্দ্বীই দলের বিদ্রোহী প্রার্থী। বিশেষ করে হাতীবান্ধা উপজেলায় নৌকা প্রতীকের বিপক্ষে লড়ছেন দলের স্থানীয় ৪ প্রার্থী। আগামী ১০ মার্চ জেলার ৫ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচন করছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল হক পাটোয়ারী ভোলা। এখানে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হয়ে লড়ছেন কামরুজ্জামান সুজন। জেলা কমিটি কেন্দ্রে নজরুল হক পাটোয়ারী ভোলার নাম না পাঠালেও তিনি কেন্দ্র থেকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। সুজন বয়সে তরুণ। দলের একটি প্রভাবশালী অংশ গোপনে তাকে সমর্থন জোগাচ্ছেন এমন কথা ভোটারদের মধ্যে চালু আছে।  আদিতমারী উপজেলায় সাপটিবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল আলম নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করছেন। এখানে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন জোট সরকারের আমলে হত্যাকা-ের শিকার মুক্তিযোদ্বা সুরুজ্জামানের ছেলে ইমরুল কায়েস ফারুখ। দুজনের মধ্যে তীব্র লড়াই হবে বলে মনে করছেন এখানকার ভোটাররা। ১০ মার্চ আদিতমারী উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের ৬৭টি কেন্দ্রে
ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। কালীগঞ্জ উপজেলায় আওয়ামী লীগের কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকায় বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ সুবিধাজনক অবস্থানে আছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে লড়বেন জাতীয় পার্টি মনোনীত শাহ সুলতান নাসির উদ্দিন আহম্মেদ।     হাতীবান্ধা নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন বাচ্চু। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হয়ে লড়ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বদিউজ্জামান ভেলু, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সরওয়ার হায়াত খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন রন্টু ও সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মশিউর রহমান মামুন। একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় এ উপজেলায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা বিপাকে পড়েছেন।   পাটগ্রাম উপজেলায় নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করছেন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন ওয়াজেদুল ইসলাম শাহিন। এখানে অন্য কোনো প্রার্থী না থাকায় লড়াই হবে দুজনের মধ্যে। লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট বাদল আশরাফ দেশ রূপান্তরকে জানান, যেসব প্রার্থী নৌকা প্রতীক পাননি, তারাও দলের ত্যাগী নেতাকর্মী। তাই ওইসব প্রার্থীকে বিদ্রোহী বলা সমীচীন হবে না।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত