শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সারা দেশে ‘রোহিঙ্গা ভোটার’ কতজন তথ্য চায় হাইকোর্ট

আপডেট : ১২ জুন ২০২৪, ০২:০৪ এএম

কক্সাবাজারের পর এবার সারা দেশে কত সংখ্যক রোহিঙ্গাকে ভোটার করা হয়েছে সে বিষয়ে তথ্য চেয়েছে উচ্চ আদালত। তদন্ত করে এ বিষয়ে হাইকোর্টে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এক সম্পূরক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

কক্সবাজারে একটি ইউনিয়নে বেআইনিভাবে ৩৭০ রোহিঙ্গাকে জন্ম নিবন্ধন সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়ার অভিযোগ সংক্রান্ত একটি রিট আবেদন করা হয় গত ২৩ এপ্রিল। প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত ২৫ এপ্রিল হাইকোর্টের এই দ্বৈত বেঞ্চ আদেশে কক্সবাজারে কতজন রোহিঙ্গাকে ভোটার করা হয়েছে সে তথ্য জানতে চেয়েছে। একই সঙ্গে তদন্তের মাধ্যমে প্রমাণিত ৩৫ জন রোহিঙ্গাকে ভোটার তালিকা থেকে বাদ দিতে নির্দেশ দিয়ে ৬ জুনের মধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগ, নির্বাচন কমিশন ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসনকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

এর ধারাবাহিকতায় রিটকারী পক্ষ গত সোমবার হাইকোর্টে একটি সম্পূরক আবেদন করে। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্লাহ মিয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাসগুপ্ত। অ্যাডভোকেট সিদ্দিক উল্লাহ দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘এর আগে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ভোটার নিয়ে আদেশটি প্রতিপালিত হয়নি। সম্পূরক আবেদনটি করার পর সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সারা দেশের তথ্য চেয়ে আবেদন করেছিলাম। স্থানীয় সরকার সচিব, নির্বাচন কমিশনারকে এ আদেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।’

রিটকারীপক্ষের তথ্য মতে, ২০১৬ থেকে কক্সবাজারের ঈদগাও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্থানীয় কিছু জনপ্রতিনিধির যোগসাজশে অর্থের বিনিময়ে অসংখ্য রোহিঙ্গাকে ভূয়া ঠিকানা ও জাল কাগজপত্রের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি করে বাংলাদেশের নাগরিক করার অভিযোগ উঠেছে। এভাবে ওই ইউনিয়নের অন্তত ৩৭০ জন রোহিঙ্গাকে বেআইনিভাবে জন্ম নিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়। এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ হামিদ ৩৮ জন রোহিঙ্গার নাম উল্লেখ করে অভিযোগ দাখিল করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তদন্তের পর ২০২৩ এর ২৯ অক্টোবর তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, ৩৫ জন রোহিঙ্গার বিষয়ে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে এবং এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের কয়েকজন জনপ্রতিনিধির সম্পৃক্ততার তথ্য উঠে আসে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত