রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

উত্তরা, এনসিসি ব্যাংকের ৫ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র অনুমোদন

আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০২:৫৮ এএম

অর্থ আত্মসাতের মামলায় উত্তরা ও ন্যাশনাল ক্রেডিট অ্যান্ড কমার্স (এনসিসি) ব্যাংকের পাঁচ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল মঙ্গলবার অভিযোগপত্র অনুমোদন

দেওয়া হয়।

আন্তঃব্যাংকিং রেমিট্যান্সের ৩ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে উত্তরা ব্যাংকের তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এবং এনসিসি ব্যাংকের ৩ কোটি ৮৮ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আলাদা মামলায় অভিযোগপত্র অনুমোদন করা হয়।

দুদক সচিব দেলোয়ার বখত দেশ রূপান্তরকে জানান, উত্তরা ব্যাংকের নারায়ণগঞ্জ শাখার সাবেক প্রধান ক্যাশিয়ার মুক্তার হোসেন, বরখাস্তকৃত ব্যবস্থাপক মো. রোকনুজ্জামান ও বরখাস্তকৃত দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তা মো. নিজামউদ্দীনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ২০১৪ সালের ১৬ মে নারায়ণগঞ্জ থানায় একটি মামলা করা হয়। মামলাটি তদন্ত করেন কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকার সহকারী পরিচালক সুমিত্রা সেন। তদন্তে উঠে আসে, উত্তরা ব্যাংক লিমিটেডের নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জ শাখায় ২০১৩ সালের ২৭ মে ট্রান্সফার ভাউচারের মাধ্যমে দেড় কোটি টাকা এবং ১৫ সেপ্টেম্বর অন্য একটি ট্রান্সফার ভাউচারের মাধ্যমে ৪০ লাখ টাকা আসে। অন্যদিকে মুন্সীগঞ্জের রিকাবীবাজার শাখায় ওই বছরের ২২ মে একটি ট্রান্সফার ভাউচারের মাধ্যমে ৫০ লাখ টাকা ও ২৭ মে অন্য একটি ট্রান্সফার ভাউচারে আরও ৬০ লাখ টাকা আসে। এরপর আসামিরা অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে কৌশলে অর্থ আত্মসাৎ করে।

অন্যদিকে রাজধানীর রমনা মডেল থানার মামলায় এনসিসি ব্যাংকের ৩ কোটি ৮৮ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ব্যাংকটির কর্মকর্তা এইচ এম নুরুউদ্দিন চৌধুরী ও শাহেলা কিবরিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। মামলার তদন্ত করেন দুদকের উপপরিচালক এস এম মফিদুল ইসলাম। আসামি নূরুদ্দিন ও শাহেলা কিবরিয়া এনসিসি ব্যাংকের বিজয়নগর শাখার কর্মকর্তা ছিলেন। আগেই ব্যাংক তাদের সাময়িক বরখাস্ত করে।

তদন্তে বলা হয়, নুরুদ্দিন চৌধুরী বিজয়নগর শাখায় ক্লিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত থাকাকালে ৫৯টি ভুয়া এন্ট্রির মাধ্যমে সানড্রি অন লাইন ক্লিয়ারিং অ্যাকাউন্ট ডেবিট করে ৩ কোটি ৮৮ লাখ ৪ হাজার ৪৯৬ টাকা তুলে নেন। নুরুদ্দিন নিজস্ব ও পরিচিত বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে ক্রেডিট জমা করে বিভিন্ন সময়ে তুলে নিয়ে আত্মসাৎ করেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত