সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আবাহনীর হারে শীর্ষে মোহামেডান

আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৪৪ এএম

গ্রীনডেল্টা ইনস্যুরেন্স প্রিমিয়ার ডিভিশন হকি লিগের প্রথমপর্ব শেষে শীর্ষস্থান ধরে রাখতে আবাহনীর প্রয়োজন ছিল জয়। অন্যদিকে শিরোপা পুনরুদ্ধার স্বপ্ন বাঁচাতে জয়ের বিকল্প ছিল না মেরিনার ইয়াংস ক্লাবের। শেষ পর্যন্ত আবাহনীকে ২-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা লড়াই জমিয়ে তুলেছে মেরিনার্স। আর আবাহনীর প্রথম হারে প্রথমপর্ব শেষে পয়েন্ট টেবিলের সবার ওপরে উঠে গিয়েছে মোহামেডান। বুধবার মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে সাদা-কালোরা ৭-২ গোলে হারিয়েছে বাংলাদেশ স্পোর্টিংকে। আগামীকাল শুরু হবে সুপার সিক্সের খেলা।

১০ ম্যাচ শেষে একমাত্র দল হিসেবে অপরাজিত থেকে মোহামেডান ২৬ পয়েন্ট নিয়ে আছে সবার ওপরে। আবাহনী ও ঊষা ক্রীড়া চক্রের সংগ্রহ সমান ২৫ পয়েন্ট হলেও গোল ব্যবধানে এগিয়ে আছে আবাহনী। মেরিনার্স চারে আছে ২২ পয়েন্ট নিয়ে। সুপার সিক্স নিশ্চিত করা অপর দুই দল বাংলাদেশ পুলিশ (১৭ পয়েন্ট) ও অ্যাজাক্স এসসি (১৪ পয়েন্ট)।

চলতি লিগে বড় দলগুলোর মুখোমুখি মানেই কোনো না কোনো অজুহাতে গোলমাল লেগে যাওয়া আর ম্যাচ বিলম্বিত হওয়া। প্রায় প্রতি ম্যাচেই মিলেছে এমন চিত্র। তবে বুধবার মেরিনার্স-আবাহনী ম্যাচটা ছিল ব্যতিক্রম। দুই পরাশক্তির লড়াইয়ে ঝাঁজ ছিল তবে অহেতুক কালক্ষেপণ হয়নি। একবারের জন্যও অনাহূত কারণে বন্ধ হয়নি খেলা।

ম্যাচের প্রথম কোয়ার্টার ছিল গোলশূন্য। এই সময়টায় দুদলই চেয়েছে গুছিয়ে নিয়ে খেলতে। কিছু সুযোগও দুদল পেয়েছে। তবে সেগুলো কাজে লাগেনি। দ্বিতীয় কোয়ার্টারে অবশ্য দুই গোলের লিড নেয় আগের ম্যাচে মোহামেডানের কাছে হারের তেতো স্বাদ পাওয়া মেরিনার্স। ২০ মিনিটে মঈনুল ইসলাম কৌশিক করেন ফিল্ড গোল। পরের মিনিটেই পিসির সুযোগ কাজে লাগিয়ে ব্যবধান বাড়ান সোহানুর রহমান সবুজ। দুই গোল হজম করা আবাহনী তৃতীয় কোয়ার্টারে অনেক চেষ্টা করেও প্রতিপক্ষের গোলমুখ খুলতে পারেনি। তবে চতুর্থ কোয়ার্টারে একটি গোল শোধ দেয় তারা। ৪৯ মিনিটে অভিজ্ঞ পুস্কর খীসা মিমোর স্টিক থেকে আসে কাক্সিক্ষত গোল। তবে বাকি সময়ে আর গোল করতে না পারায় লিগে প্রথম হারের মুখোমুখি হতে হয় আকাশি-হলুদ জার্সিধারীদের।

দিনের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে মোহামেডানের বড় জয় অনুমিতই ছিল। আগের ম্যাচে মেরিনার্সকে হারিয়ে আসা মোহামেডান শুরুর থেকেই প্রাধান্য বিস্তার করে একের পর এক গোল আদায় করে নেয়। অভিজ্ঞ ফরোয়ার্ড দ্বীন ইসলাম ইমন পান হ্যাটট্রিকের দেখা। এছাড়া শফিউল আলম শিশির, শিমুল ইসলাম, আমিরুল ইসলাম এবং মালয়েশিয়ান ফিতরি বিন সারি একটি করে গোল করেন। ১০ দলের লিগ আটে থেকে শেষ করা বাংলাদেশ এসসির হয়ে একটি করে গোল করেন সজিব ইসলাম ও ভারতের চিরঞ্জিত সিং।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত