বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

এমপি রুহেলকে জেতাতে ‘অপকর্ম করেছি’: আ. লীগ নেতা 

আপডেট : ৩০ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪২ পিএম

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১ আসনের সংসদ সদস্য মাহবুব উর রহমান রুহেলকে জেতানোর জন্য আমরা অনেক ‘অপকর্ম করেছি’ বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া।

সোমবার (২৯ এপ্রিল) বিকেলে মিরসরাইয়ের বড় তাকিয়া বাজারে ইভা কমিউনিটি সেন্টারে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী শেখ মোহাম্মদ আতাউর রহমানের কর্মীসভায় জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া এ বক্তব্য দেন। ওই বক্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।  

ভিডিওতে মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা জাহাঙ্গীর ভূঁইয়াকে বলতে শোনা যায়, ‘আমরা গত ৭ জানুয়ারি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী আমাদের প্রিয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের সুযোগ্য সন্তান মাহবুব উর রহমান রুহেলকে জেতানোর জন্য অনেক অপকর্ম করেছি। আগামী ৮ মে কোনো অপকর্ম ছাড়া আমরা ভোটকেন্দ্র খোলা রাখব। 

আমাদের প্রার্থী বলেছেন, ভোটকেন্দ্রে আসবেন, যাকে খুশি তাকে ভোট দেবেন, আমাদের আপত্তি নাই। তবে যদি কেউ ভোটকেন্দ্র বন্ধের পাঁয়তারা করেন, একাধিক ভোট দেওয়ার চেষ্টা করেন, কবরস্থানের মুর্দাদের ভোট দিতে চায়, আমরা তৎক্ষণাৎ ভোটকেন্দ্র বন্ধ করে সেখানে বিক্ষোভ প্রদর্শন করব।

ভিডিওতে তাকে আরও বলতে শোনা যায়, আমরা আর কোনো অবস্থায় অপকর্ম চাই না। ভোটবিহীন যে অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে আজকে বিএনপি ভোটকেন্দ্রে যায় না, আওয়ামী লীগও ভোটকেন্দ্রে যেতে চায় না। মানুষকে ভোটে ফেরাতে শেখ হাসিনা কোনো দলীয় প্রতীক রাখেননি। ভোটকেন্দ্রে না আসার প্রবণতা মিরসরাইসহ পুরো বাংলাদেশে তৈরি হয়েছে। আমরা আর কোনো অবস্থাতে আর অপকর্ম চাই না।

ওই কর্মীসভায় ঘোড়া প্রতীক নিয়ে মিরসরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আতাউর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী, বারইয়ারহাট পৌরসভার সাবেক মেয়র নিজাম উদ্দিন, দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান এবং খৈয়াছড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। 

ওই বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে এ কে এম জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) গণমাধ্যমে বলেন, জাতীয় নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীকে জেতাতে সকল চেষ্টা যে বৈধ ছিল, তা নয়। অনেক অপকর্মও করেছি। এখন যে কোনো নির্বাচনে ১০-১৫ শতাংশের বেশি ভোট পড়ে না। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে দলীয় প্রতীক না রেখে নিরপেক্ষ নির্বাচনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। কিন্তু আমাদের উপজেলায় একজনের পক্ষ নিতে বলা হয়েছে। অনেকেই এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে না পারলেও মুখে কিছু বলছে না। আমি কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মেনে নির্দিষ্ট একজনের পক্ষ নিতে পারব না।’

মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া উপজেলার ৪ নম্বর ধুম ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। এর আগে তিনি ধুম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত