শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ইউপি সদস্যকে পেটালেন যুবলীগ নেতা

আপডেট : ১৫ মে ২০২৪, ১১:৩১ পিএম

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় যুবলীগ নেতা মামুনুর রশীদের বিরদ্ধে ইউপি সদস্য রেজাউল করিমকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

আজ বুধবার (১৫ মে) দুপুরে উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে এ ঘটনা ঘটে। যুবলীগ নেতা মামুন উপজেলা যুবলীগের সদস্য (বহিষ্কৃত) এবং ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনা এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, যুবলীগ নেতা মামুনুর রশীদ দুপুরে ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে দলবল নিয়ে ঢুকে। এ সময় পরিষদের উদ্যোক্তা ইমরান হোসেনের কক্ষে ঢুকে মামুন মেয়ের জন্ম সনদ দিতে বলেন। জন্ম সনদ দিতে দেরি হওয়ায় হাত ভেঙে ফেলার হুমকি দেন মামুম। এরপর পরিষদের সচিবের কক্ষে ঢুকে ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রেজাউল করিমের সাথে অসদাচরণ করেন। প্রতিবাদ করলে সচিবের কক্ষে বসে থাকা ইউপি সদস্য রেজাউল করিমকে পেটান মামুন। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য রেজাউল করিম অভিযোগ, পরিষদের উদ্যোক্তার কক্ষে ঢুকে তাকে হুমকি দেয় মামুন ও তার দলবল। বিষয়টি জানতে চাইলে ইউপি সদস্যের সাথে অসদাচরণ করেন। এর প্রতিবাদ করলে তাকে মারধর শুরু করে মামুন ও তার লোকজন। এ ঘটনার বিচার দাবি করেন ইউপি সদস্য।

ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মেহেদী হাসান অভিযোগ করে বলেন, পরিষদে ঢুকে প্রথমে উদ্যোক্তাকে হুমকি দেয় মামুন। ইউপি সদস্য রেজাউল করিম এর প্রতিবাদ করলে তার উপর হামলা করে মামুন ও তার লোকজন।

এ ব্যাপারে ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক স্বপন বলেন, এর আগেও একাধিকবার পরিষদে ঢুকে অনেকের সাথে খারাপ আচরণ করেছে মামুন।

উপজেলা যুবলীগের সভাপতি একেএম আশরাফুল ইসলাম বলেন, সে উপজেলা যুবলীগের সদস্য ছিলেন। তাকে আগেই দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সরিষাবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুশফিকুর রহমান বলেন, মারধরের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। এ ঘটনায় মামুনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। তাকে আটকের অভিযান চলছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত