মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পাবনায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে আ.লীগ নেতা নিহত

আপডেট : ১০ জুন ২০২৪, ০১:৫৮ এএম

পাবনায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে এক আওয়ামী লীগ নেতা নিহত হয়েছেন। শনিবার রতে সদর উপজেলার ভাঁড়ারা ইউনিয়নের নলদহ নতুনবাজার এলাকায় একটি চায়ের দোকানে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের পরিবার ও আওয়ামী লীগ নেতাদের দাবি এটি চরমপন্থিদের কাজ।

নিহত জহিরুল ইসলাম বাবু ওরফে বাবু শেখ (৫৫) পাবনা সদর উপজেলার গয়েশপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ মনোহরপুর গ্রামের মৃত আজাহার শেখের ছেলে। তিনি গয়েশপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার রাত ৯টার দিকে নতুনবাজারে একটি চায়ের দোকানে বসে ছিলেন বাবু। এ সময় মুখঢাকা কয়েকজন অস্ত্রধারী এসে তাকে লক্ষ্য করে গুলি করে পালিয়ে যায়। নেতা নিহত স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

শনিবার রাতে নিহত বাবু শেখের ভাতিজা মো. শাকিল বলেন, ‘কয়েক মাস আগে একইভাবে আমার বাবাকেও হত্যা করেছে চরমপন্থি সন্ত্রাসীরা। আজ একইভাবে আমার চাচাকেও হত্যা করল। গত কয়েক বছরে চরমপন্থিদের হাতে তাদের পরিবারের পাঁচ জন খুন হয়েছেন। ফলে, পরিবারের সবাই আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন।’

গয়েশপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কালু মন্ডল বলেন, ‘বাবু স্থানীয় আওয়ামী লীগের একজন সংগঠক ছিলেন। তাকে এভাবে হত্যার পর এলাকার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কিছুদিন ধরে এলাকায় নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থি সংগঠন পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টির তৎপরতা বেড়েছে। তারা এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করতে একের পর এক হত্যাকা- ঘটাচ্ছে। চরমপন্থি সদস্য যারা সরকারের দেওয়া সুযোগ নিয়ে আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন তাদেরও টার্গেট করে হত্যা করা হচ্ছে।

পাবনা সদর থানার ওসি মো. রওশন আলি বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। হত্যাকান্ডের বিস্তারিত জানা যায়নি। তদন্ত চলছে এবং দোষীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

নিখোঁজের ১৮ ঘণ্টা পর খাল থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার : নগরের বন্দর থানা এলাকার একটি খাল থেকে এক রিকশাচালকের ৮ বছর বয়সী শিশুসন্তানের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল  রবিবার সকাল ১০টার দিকে স্থানীয় নাছির খাল থেকে সাহেদুল ইসলাম নামে ওই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহ উদ্ধারের ১৮ ঘণ্টা আগে শিশুটি নগরের ডবলমুরিং থানা এলাকার একটি নালায় পড়ে নিখোঁজ হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। সাহেদুল নগরের ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডের সিডিএ কলোনী এলাকায় মা-বাবার সঙ্গে ভাড়া বাসায় থাকত। বন্দর থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) জিল্লুুর রহমান জানান, শনিবার বিকেল ডবলমুরিং থানা এলাকায় নালায় পড়ে এক শিশু নিখোঁজ হন। এরপর থেকে পরিবারে সদস্যরা খোঁজ নিতে থাকেন। গতকাল সকালে বন্দর থানাধীন নাছির খাল থেকে শিশুর মরদেহটি উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত