সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

কিছুটা লড়াই

আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর ২০২৩, ১১:৪৩ এএম

তাজিদুল ইসলাম লাল, রংপুর : কাউনিয়া-পীরগাছা উপজেলা নিয়ে গঠিত রংপুর-৪ আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে একজন জাতীয় পার্টির মোস্তফা সেলিম এর আগে একবার নির্বাচন করেছেন। প্রভাবও আছে। তবে সাংগঠনিকভাবে দুর্বল হয়ে আসা জাতীয় পার্টি (জাপা) কতটা লড়াই করবে তা নিয়ে সংশয় আছে।

অন্য প্রার্থী বাংলাদেশ কংগ্রেসের সিরাজুল ইসলাম পাটওয়ারী কম পরিচিত। দলটির সাংগঠনিক কর্মকা-ও চোখে পড়েনি আগে। নির্বাচনে নতুন অংশ নেওয়া এই প্রার্থীর প্রচারও কম।

জাতীয় পার্টির দুর্গ হিসেবে পরিচিত এই আসনটি ২০০১ সাল পর্যন্ত দলটির দখলে ছিল। ২০০৮ সালের নির্বাচনে নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব থাকায় এ আসনটি হাতছাড়া হয়ে যায়। এরপর থেকে আসনটি আওয়ামী লীগের দখলে চলে যায়। তবে ২০০১ সালের আগের নির্বাচনগুলোতে এ আসনে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। আওয়ামী লীগের অবস্থান ছিল তৃতীয়। তবে গত নির্বাচনে জাপা তৃতীয় হয়েছে।

এবারের নির্বাচনে টিপু মুনশির প্রচারও জমজমাট। অন্যদিকে লাঙ্গল প্রতীকের জাপার কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মোস্তফা সেলিম (বেঙ্গল) পোস্টার, ব্যানার দেখা যাচ্ছে পাড়ায় পাড়ায়। প্রচারেও তিনি পিছিয়ে নেই। আর্থিক সংকট ও কেন্দ্রীয় সহযোগিতা না থাকায় বাংলাদেশ কংগ্রেসের সিরাজুল ইসলাম পাটওয়ারী ডাব প্রতীকের পোস্টার ও ব্যানার চোখে পড়ছে না। সাধারণ ভোটাররা বলছেন, পরপর তিনবার টিপু মুনশি নির্বাচিত হওয়া এই আসনটি আওয়ামী লীগের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। এবারও তার বিজয় অনেকটা সুনিশ্চিত। কারণ হিসেবে ভোটাররা মনে করছেন, গত দুবারের দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের অভিজ্ঞতা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কাঠামো শক্তিশালী রয়েছে। তবে তার প্রতিদ্বন্দ্বী মোস্তফা সেলিমও এবার কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন। দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে আগেই একাধিক বৈঠক করেছেন। কোন্দল ভুলে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছেন তিনি। প্রতীক বরাদ্দের দিন দুই উপজেলায় বিশাল শোডাউন করেন তিনি।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত